পূর্ববাংলার কমিউনিস্ট পার্টির নেতা পরিচয়ে ডিসি-এসপির কাছে চাঁদা দাবি

নিউজটি লাইক-শেয়ার করুন

স্টাফ রিপোর্টার: পূর্ববাংলার কমিউনিস্ট পার্টির নেতা পরিচয়ে দিয়ে যশোরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) ও যশোরের পুলিশ সুপারের কাছে চাওয়া হয়েছ। এছাড়াও যশোরের বিভিন্ন অফিসের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের ফোন দিয়ে মোটা অংকের চাঁদা দাবি করা হয়েছে। কাঙ্খিত চাঁদা না দিলে পরিবারের লোকজনকে নানাভাবে ক্ষতি করার হুমকি দেওয়া হয়েছে।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ তমিজুল ইসলাম খান, পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন, সিভিল সার্জন শেখ আবু শাহীন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মাদ রফিকুল হাসান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আহমেদ জিয়াউর রহমান, যশোর সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মীর আবু মাউদ, চৌগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মোসাম্মৎ লুৎফুন নাহার ও কেশবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মাদ আলমগীরের কাছে এ চাঁদা দাবি করা হয়েছে।

যশোরের সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহীন সংবাদকর্মীদের জানান, যশোর সদর, চৌগাছা ও কেশবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তার কাছে ফোন করে সংগঠনের সদস্যদের চিকিৎসা ও মামলার খরচ পরিচালনার জন্য চাঁদা দাবি করা হয়। এ ঘটনায় বুধবার তারা থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন।
তিনি আরো বলেন, ‘আজ দুপুর একটা ৫০ মিনিটের দিকে আমাকেও ফোন করে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করা হয়। আমি বিষয়টি সাথে সাথে পুলিশ সুপারকে জানিয়েছি। থানায় জিডির প্রস্তুতি নিচ্ছি।’

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ তমিজুল ইসলাম খান বলেন, ‘আজ দুপুর একটার দিকে আমার ফোনে একটি মেসেজ এসেছে। ওই মেসেজে ৫০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করা হয়। চাঁদা না দিলে পরিবারের সদস্যদের ক্ষতির হুমকিও দেওয়া হয়েছে। শুধু আমি নয়, জেলার বিভিন্ন সরকারি অফিসে ফোনেও খুদেবার্তার মাধ্যমে কর্মকর্তাদের কাছে মোটাা অংকের টাকা দাবি করেছেন। তিনি বলেন বিষয়টিি আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীতে থাকা কর্মকর্তাদের জানানোো হয়েছে। কর্মকর্তাারা ইতোমধ্যে এ বিষয়ে গুরুত্ব সহকারে অনুসন্ধান চালাচ্ছে।
বিষয়টি নিয়ে যশোরের পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেনের কাছে জানতে চাই তিনি বলেন, বিভিন্ন অফিসের উদ্বোধন কর্মকর্তার কাছ থেকে অভিযোোগ আসছে তাদের কাছে পূর্ব বাংলাা কমিউনিস্ট নেতা পরিচয় দিয়ে মোটা অংকের চাঁদা চাওয়া হচ্ছে। এ ধরনের ঘটনা আমার ফোনেও  ঘটেছে। সরকারি অফিসের লোকজনের কাছ থেকে অভিযোগ আসার পরপর আমি আমার অধীনস্থ সমস্ত ডিপার্টমেন্টকে বিষয়টি তদন্তের জন্য বলেছি। যারাই এ ধরনের ঘটনার সাথে জড়িত তাদেরকে দুই-একদিনের মধ্যে আটক করে আইনের আশ্রয় আনা হবে বলে তিনি জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *