স্কেল সুবিধা না দেওয়ায় বেনাপোলে কাস্টমস কর্মকর্তাকে কুপিয়ে জখম

নিউজটি শেয়ার লাইক দিন

নিজস্ব প্রতিবেদক: বেনাপোল বন্দরের ৩১ নম্বর কাঁচামালের মাঠে ওজন পরিমাণ যন্ত্র বা স্কেল মেশিনে বাড়তি সুবিধে না দেওয়ায় রাফিউল ইসলাম নামে এক সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তাকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করেছে দুর্বৃত্তরা।

শুক্রবার (৭ই জুন) রাত ৯টার দিকে বেনাপোল সীমান্তের পাচুয়া বাঁওড়ের এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা তাঁকে উদ্ধার করে প্রথমে শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে অবস্থার অবনতি হলে যশোর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন।

সে নেত্রকোনা জেলা সদরের মা. কাজিম উদ্দিনের ছেলে এবং বন্দরের ৩১ নম্বর কাঁচামালের মাঠের ওজন পরিমাণ যন্ত্র স্কেল মেশিন তদারকিতে দায়িত্বরত ছিলেন।

স্থানীয়রা জানান, দীর্ঘদিন ধরে বন্দরের একটি প্রভাবশালী চক্র বন্দরের ৩১ নম্বর ফলের মাঠে পেশি শক্তি খাটিয়ে ওজন স্কেলে বাড়তি সুবিধা নিয়ে আসছিল। রাকিবুল ইসলাম ফলের মাঠের ওজন স্কেলে র দায়িত্ব পাওয়ার পরে চক্রটিকে সুবিয়ে দিতে অস্বীকার করেন। ফলে চক্রটির সাথে প্রায় সময়ে গোলযোগ হত। এমনকি বিভিন্ন সময়ে তাকে হুমকি-ধাম দেখানো হতো। একপর্যায়ে শুক্রবার রাত নটার দিকে রাফিউল তার বন্ধু সোরাবকে নিয়ে বেনাপোলের পেচোর বাওড়ে বেড়াতে গেলে তার উপর অতর্কিত হামলা করে তাকে এলো পাতাড়ী ভাবে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। পরে  স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে নাভারন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ নিয়ে যান। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে সাথে সাথে যশোর ২৫০  শয্য বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন।

যেভাবে ছুরিকাঘাত করা হয় রাফিউল কে ভিডিও দেখতে, এখানে ক্লিক করুন

বেনাপোল কাস্টমস হাউসের রাজস্ব কর্মকর্তা আরিফুর রহমান জানান, রাত সাড়ে ৯টায় রাফিউল বেনাপোলের রঘুনাথপুর সড়ক ভ্যান যোগে তাঁর এক বন্ধুকে নিয়ে ঘুরতে যাওয়ার সময় পাচুয়ার বাঁওড় এলাকায় হামলার শিকার হন। দুর্বৃত্তরা তাঁকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে পালিয়ে যায়। স্থানীয় লোকজন ও সহকর্মীরা তাঁকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়।

ভুক্তভোগী রাফিউল বলেন, আমি ৭মাস আগে বেনাপোল কাস্টম হাউসে যোগদান করি। আমার কর্মস্থল ছিল বেনাপোল ৩১ নম্বর ইয়ার্ডের ফলের মাঠে। রাত ৯ টার দিকে আমিও আমার বন্ধু সোরাব মিলে একটি ভ্যান নিয়ে বেনাপোলের পাশে পেচোর বাওড়ে বেড়াতে যায়।  বাওড়ে পৌঁছানোর সাথে সাথে মোটরসাইকেলে তিনজন এসে ভ্যানের ৫০ গজ দূরে দাঁড়ান।  কোন কিছু বুঝে ওঠার আগেই একজন আমাকে এলোপাতাড়ি ভাবে কোপাতে থাকে। এ সময়ে আমার বন্ধু সোরাব ঠেকাতে গেলে আক্রমণকারী বলতে থাকে তুমি ঠেকাতে এসো না। সে আমার অনেক বড় ক্ষতি করেছে। তুমি আসলে তোমাকেও কোপানো হবে। এরফলে বন্ধু সোরাব সেখান থেকে পালিয়ে যায়। পরে আশপাশের লোকজন আমাকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেন। সেখানে ডাক্তারদের পরামর্শে আমাকে রাত ১১টার দিকে যশোর ২৫০ শয্যা  বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন।

বেনাপোল কাস্টম হাউজের কমিশনার আব্দুল হাকিম বলেন, এই মুহূর্তে আমরা আমাদের অফিসার কে যথাযথভাবে চিকিৎসা জন্য সার্বিক ভাবে ব্যস্ত রয়েছি। রাজস্ব কর্মকর্তা রাফিউল একটু সুস্থ হলে থানায় মামলা দায়ের করা হবে। তাছাড়া বেনাপোল পোর্ট থানার অফিসার ইনচার্জ সুমন ভক্তকে মৌখিকভাবে বিষয়টি জানানো হয়েছে। তিনিও এ বিষয়ে খোঁজখবর নিচ্ছে এবং অপরাধীদের ধরতে অভিযান চালাচ্ছেন।

বিষয়টি নিয়ে বেনাপোল পোর্ট থানার অফিসার ইনচার্জ সুমন ভক্তের মুঠোফোনে কয়েক দফায় সংযোগ দিয়েও তাকে পাওয়া যায়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *