যশোরে ইউনিক সিকিউরিটিজ নামে ভুয়া প্রতিষ্ঠান খুলে কোটি কোটি টাকা লুট

নিউজটি শেয়ার লাইক দিন

নিজস্ব প্রতিনিধি: যশোরে ইউনিক সিকিউরিটিজ কোম্পানি প্রাইভেট লিমিটেড নামে একটি ভুয়া প্রতিষ্ঠান খুলে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে একটি সুসংগঠিত চক্রের বিরুদ্ধে। চক্রটি যশোর শহরে কখনো পাল বাড়ির মোড়, কখনো মুড়লী মোড়, কখনো নিউমার্কেট, কখনো চাঁচড়া চেকপোস্টে অফিস খুলে হাজার হাজার চাকরি প্রত্যাশী কাছ থেকে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।

শনিবার যশোর চাঁচড়া চেকপোস্টে ইউনিক সিকিউরিটি সার্ভিস প্রাইভেট লিমিটেডের অফিসে যেয়ে দেখা যায়  যশোর জেলা থেকে পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়ে হাজার হাজার চাকরিপ্রত্যাশী কে একত্রিত করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে ফরম ফিলাপের জন্য ৫০০ করে টাকা নেওয়া হচ্ছে। যার অধিকাংশ চাকুরী প্রত্যাশীদের আশ্বাস দিচ্ছেন জনপ্রতি ৫০ হাজার থেকে এক লাখ টাকা জামানত দিলে তাদেরকে ভালো চাকরি দেওয়া হবে। এমনই প্রলোভন দেখিয়ে হাজার হাজার কোটি টাকা লুটপাট করছে চক্রটি। এরপর চাকরি প্রত্যাশীদের বছর পেরিয়ে গেলেও চাকরি দেয়ার নামে কোন খোঁজখবর নেই।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক যুবক জানায়,লেখাপড়া শিখে গত তিন-চার বছর বাড়িতে বেকার বসে আছি। পত্রিকায় বিজ্ঞাপন থেকে জানতে পারলাম যশোর চাঁচড়া চেকপোস্ট অবস্থিত ইউনিক সিকিউরিটি সার্ভিস প্রাইভেট লিমিটেড নামের একটি প্রতিষ্ঠান চাকরি দিচ্ছে। বিজ্ঞাপনে থাকা ফোন নাম্বারে যোগাযোগ করলে তারা অফিসে যেতে বলেন। অফিসে গিয়ে প্রথমে ৫০০ টাকা জমা দিয়ে একটি ফরম ফিলাপ করতে বলেন।

 

এরপর আমাদেরকে জানায়  প্রত্যেকেই ৬০ হাজার করে টাকা দিলে তাদেরকে ২০ হাজার টাকা বেতনে সিকিউরিটি সুপারভাইজার পদে চাকরি দেওয়া হবে। একথা সোনার পরে বাড়িতে বাবা মায়ের সাথে কথা বলি। তারা বলেন যদি ৬০ হাজার করে টাকা দিয়ে যদি ২০ হাজার টাকা বেতনে চাকরি পাওয়া যায় তাহলে তো ভালই হয়। সে মোতাবেক এক বছর আগে তাদেরকে আমরা ১০ জন মিলে প্রত্যেকেই ৬০ হাজার করে টাকা দেয় প্রতিষ্ঠানের মালিক রিয়াজুল এর কাছে। একপর্যায়ে আজ না কাল, কাল না পরশু, এমাস না ও ওয়াস, না আগামী মাস এভাবে বলে বলে তারা এক বছর পার করে দিয়েছে। কিন্তু এখনো পর্যন্ত আমাদেরকে কাউকেই কোন চাকরি দেয়নি। তাই আমরা আপনার মাধ্যমে প্রশাসনিক উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের বিষয়টি দৃষ্টি দেয়ার আহব্বান জানাচ্ছি বলে জানান এসব বেকার চাকরি প্রত্যাশীরা।

উল্লেখ্য গত চার বছর আগে যশোর পালবাড়ি এলাকায় রিয়াজুল আহমেদ, শরিফুল ইসলাম ও এম এ আজিজ ইউনিক সার্ভিস প্রাইভেট লিমিটেড নামের একটি প্রতিষ্ঠান খুলে দেশের বেকার যুবকদের চাকরি দেওয়ার নামে পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়ে কোটি কোটি টাকা প্রতারণা করা শুরু করেন।

ভিডিও দেখতে এখানে ক্লিক করুন

বিষয়টি নিয়ে ইউনিক সিকিউরিটি সার্ভিস প্রাইভেট লিমিটেডের মালিক শরিফুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি এখানে একা না আমার সাথে আরও দুইজন মালিক আছে। তাছাড়া একজন অ্যাডভাইজার আছে। তারাই ভালো বলতে পারবেন। তবে ব্যক্তিগতভাবে আমি যে টাকাটা নিয়েছি। সেটা খুবই কিঞ্চিত পরিমাণে তবে ৫০ হাজার এক লাখ টাকা এত হবেনা ।কত জনকে চাকরি দিয়েছে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমরা অফিস থেকে প্রায় শতাধিক লোকের চাকরি দিয়েছি। বিষয়টি বিশ্বাস না হলে আপনি যশোর পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউটর অথবা বেনাপোল পৌরসভা শহরের নামিদামি প্রতিষ্ঠানগুলোতে খোজ নিয়ে দেখেন। অবশ্যই তারা বলবে ইউনিক সিকিউরিটি প্রাইভেট লিমিটেডের কথা।

বিষয়টি নিয়ে যশোর পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা বেশ কিছু দিন ধরে কিছু যুবকের কাছ থেকে ভূয়া প্রতিষ্টান খুলে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ পেয়েছি। আমরা সেখানে পুলিশ পাঠিয়ে খোঁজ খবর নিচ্ছে। অভিযোগে অভিযুক্ত হলে সে সব প্রতারক চক্রের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানান।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *